মে ২৩, ২০২৪

ইরানের নেতৃত্বাধীন একটি বড় অস্ত্র চোরাচালানের প্রচেষ্টা ব্যর্থ করে দেওয়ার দাবি করেছে জর্ডান। দেশটির দুজন কর্মকর্তা জানিয়েছেন, বর্তমান শাসক গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে নাশকতামূলক কর্মকাণ্ডে সহায়তা করতে এই অস্ত্র নিয়ে আসার চেষ্টা করেছিল ইরান।

অস্ত্রগুলো সিরিয়ায় ইরান সমর্থিত সশস্ত্র গোষ্ঠী জর্ডানের মুসলিম ব্রাদারহুডের একটি সেলের কাছে পাঠিয়েছিল। হামাস ও দখলদার ইসরাইলের মধ্যে যুদ্ধের কারণে গত কয়েক মাস ধরে মধ্যপ্রাচ্যে ব্যাপক উত্তেজনা চলছে। এর মাঝেই বুধবার রয়টার্সের প্রতিবেদনে প্রথমবারের মতো জর্ডানে অস্ত্র জব্দের খবর জানা গেল।

জর্ডানি কর্মকর্তারা জানিয়েছে, মার্চের শেষ দিকে ফিলিস্তিনি বংশোদ্ভূত জর্ডানের নাগরিকদের গ্রেফতার করা হয়। এরপর অস্ত্রগুলো জব্দ করা হয়।

তবে পরিচয় প্রকাশ করতে না চাওয়া জর্ডানের ওই দুই কর্মকর্তা জানাননি এসব অস্ত্র দিয়ে কী ধরনের নাশকতা চালানোর পরিকল্পনা করা হয়েছিল।

এছাড়া কী ধরনের অস্ত্র জব্দ করা হয়েছে সেটিও স্পষ্ট করে জানাননি তারা। তবে সাম্প্রতিক সময়ে ইরানের প্রক্রিদের অস্ত্র চোরাচালানের বেশ কয়েকটি প্রচেষ্টা রুখে দিয়েছে জর্ডান। সেগুলোর মধ্যে ছিল ক্লাইমোর মাইন, সি৪ এবং সেমটেক্স বিস্ফোরক, কালাসিনোকোভ রাইফেল এবং ১০৭ মিলিমিটার কাতুসা রকেট।

এসব অস্ত্রের বেশিরভাগই ইসায়েলের দখলদকৃত ফিলিস্তিনের পশ্চিমতীরে যাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু মার্চের শেষ দিকে যেসব অস্ত্র জব্দ করা হয়েছে সেগুলোর কিছু জর্ডানেও ব্যবহারের জন্য আনা হয়েছিল।

শেয়ার দিয়ে সবাইকে দেখার সুযোগ করে দিন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *