এপ্রিল ১৭, ২০২৪

আয়কর রিটার্ন জমা দেয়ার সময়সীমা ১ মাস বাড়ানো হয়েছে। বুধবার (৩০ নভেম্বর) কর প্রশাসন এ সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে। জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) সূত্রে এ তথ্য পাওয়া গেছে।

অর্থনৈতিক মন্দার কারণে অনেকেই আয়কর জমা দিতে পারছেন না। ফলে সম্প্রতি মেয়াদ বাড়ানোর আবেদন জানায় এফবিসিসিআই। পরিপ্রেক্ষিতে এ সিদ্ধান্ত নিলো এনবিআর। করদাতাদের সেবা গ্রহণ ও রিটার্ন দাখিলের সুবিধার্থে গত ১ নভেম্বর শুরু হয় করসেবা মাস। ওই দিন থেকে ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত এনবিআরে জরিমানা ছাড়াই আয় ও সম্পদের বিবরণী জমা দেয়ার কথা ছিল। সেটা ৩০ ডিসেম্বর পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে।

কিভাবে আয়কর রিটার্ন জমা দিবেন

করদাতাদের জন্য একটি আদর্শ ফার্ম বা প্রতিষ্ঠান নির্বাচন করা খুবই জরুরি, কেননা Making mistakes on our taxes cost us. তাছাড়া ভুল, অসম্পূর্ণ বা দেরিতে ব্যক্তিগত এবং ব্যবসায়িক ট্যাক্স রিটার্ন জমা দেওয়ার ফলে জরিমানার সাথে সাথে রয়েছে ভোগান্তি। দেখুন আমাদের দেশে আয়কর বিষয়টি মুষ্টিমেয় ছাড়া অধিকাংশের কাছেই জটিল এবং ব্যবসায়িক কর ব্যক্তিগত করের চেয়ে তুলনামূলকভাবে বেশি জটিল। আমাদের ট্যাক্স ব্যবস্থাকে যদি সহজ সরল, সাধারণ মানুষের কাছে বোধগম্য করা যায়, তাহলে তাহলে দেশের জনগণের ট্যাক্স দেওয়ার প্রবণতা আরও বাড়বে বলে আমার দৃঢ় বিশ্বাস। অবশ্য এনবিআর এ বিষয়ে কাজ করছে-বলছিলেন দেশের শীর্ষ ভ্যাট-ট্যাক্স নিয়ে কাজ করা কোম্পানি ট্যাক্সসেন্স লিমিটেডের ম্যানেজিং ডিরেক্টর মেজবাউদ্দীন মো: জীবন চৌধুরী।

তিনি বলেন, ট্যাক্স ডিজিটালাইজেশনের কারণে এখন ইন্ডিভিজুয়াল ট্যাক্স রিটার্ন আপনি অনলাইনে সাবমিট করতে পারবেন এবং প্রতিবছর উত্তরোত্তর এ ব্যবস্থার উন্নতি সাধন হচ্ছে। নি:সন্দেহে এটা একটা ভালো উদ্যোগ হিসেবে পরিগণিত করা যায়। আয়কর রিটার্ন সম্পূর্ণ নির্ভুল পদ্ধতিতে জন্য সম্পাদনের জন্য প্রয়োজন একজন ট্যাক্স বিশেষজ্ঞের। আপনি আপনার ট্যাক্স রিটার্ন সম্পাদনের জন্য বিশেষজ্ঞ নির্বাচনের পূর্বে আসলে জানা প্রয়োজন what the ideal professional actually looks like.

প্রশ্ন: একটি আদর্শ ট্যাক্স ফর্ম এর কি কি গুণাবলী থাকা দরকার?

মেজবাউদ্দীন মো: জীবন চৌধুরী: একটি আদর্শ প্রতিষ্ঠানের প্রথম যুক্তবর্ণ গুণাবলী হচ্ছে সম্মানিত ক্লায়েন্টের সমস্যাগুলি মনোযোগ সহকারে শোনা এবং এর গুরুত্ব অনুধাবন করে যথাযথ সমাধান নিশ্চিতকরণ। পাশাপাশি উক্ত প্রতিষ্ঠানের নির্ভুল সাংগঠনিক ব্যবস্থা এবং সমস্যা সমাধানের দক্ষতা থাকতে হবে। স্পষ্ট, সংক্ষিপ্ত, প্রাসঙ্গিক ও কার্যকর ভাবে যোগাযোগ রক্ষার দক্ষতা থাকতে হবে। পেশাগত আত্মবিশ্বাস এবং সততা তার গুরুত্বপূর্ণ গুণাবলীর মধ্যে একটি। এবং সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ যেটা তা হল জবাবদিহিতা। মানুষ মাত্রই কিন্তু ত্রুটিমুক্ত নয়, ত্রুটি স্বীকার করার সৎ সাহস থাকতে হবে। সর্বাগ্রে ক্লায়েন্টের যাবতীয় তথ্যের গোপনীয়তা ও নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে।

প্রশ্ন: ট্যাক্স ডিজিটাল নিয়ে আপনার মন্তব্য শুনতে চাই?

মেজবাউদ্দীন মো: জীবন চৌধুরী: আপনি যদি উন্নত দেশগুলোতে অর্থাৎ ইউরোপ আমেরিকায় দেখেন তারা কিন্তু ডিজিটালি ট্যাক্স রিটার্ন সাবমিট করেন এবং রিফান্ড দাবি করেন। আমাদের গতবছর থেকে স্মুথলি কিছুটা রান হয়েছে এই ডিজিটালাইজেশন প্রক্রিয়া। আমি আশা করছি এক সময় আমাদের দেশে ট্যাক্স ব্যবস্থা আরও সুন্দর ও সহজতর হবে । যারা শিক্ষিত ও ট্যাক্স এর আওতাভুক্ত, তারা নিঃসন্দেহে ট্যাক্স রিটার্ন অনলাইনে সাবমিট করবেন ঝামেলামুক্তভাবে ।তবে একজন দক্ষ আয়কর উপদেষ্টা বা প্রতিষ্ঠানের প্রয়োজনীয়তা অপরিহার্য। আমাদের সম্মানিত করদাতাগণ একসময় যথাযথ আয়কর পরিকল্পনার মাধ্যমে ডিজিটালি আয়কর সংক্রান্ত সমস্ত কর্মকাণ্ড বা কার্যাবলী নির্ঝঞ্ঝাট ভাবে সম্পাদিত করবেন এই প্রত্যাশা করি।

শেয়ার দিয়ে সবাইকে দেখার সুযোগ করে দিন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *