জুন ১৭, ২০২৪

ভবিষ্যৎ খাদ্য সংকট মোকাবিলায় দেশীয় উৎপাদন বাড়াতে গুরুত্ব দিচ্ছে সরকার। এ জন্য ব্যাংকগুলোকে কৃষি ঋণ বাড়াতে বিভিন্ন সময়ে নির্দেশনা দিয়ে আসছে বাংলাদেশ ব্যাংক। একইসঙ্গে কৃষি খাতের উৎপাদন বাড়াতে বেশকিছু পুনঃঅর্থায়ন স্কিম ঘোষণা করা হয়েছে। চলতি অর্থবছরের প্রথম দশ মাসে (জুলাই-এপ্রিল) ব্যাংকগুলো কৃষি খাতে ঋণ বিতরণ করেছে ২৬ হাজার ৯২৯ কোটি টাকা, যা লক্ষ্যমাত্রার ৮৭ দশমিক ৪০ শতাংশ।

সম্প্রতি বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রকাশিত সর্বশেষ হালনাগাদ প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

তথ্য অনুযায়ী, চলতি (২০২২-২৩) অর্থবছরের প্রথম দশ মাসে (জুলাই-এপ্রিল) কৃষি ও পল্লীঋণ বিতরণ হয়েছে ২৬ হাজার ৯২৯ কোটি টাকা, যা লক্ষ্যমাত্রার ৮৭ দশমিক ৪০ শতাংশ। আগের বছর এই সময়ে বিতরণ করা হয়েছিল ২৩ হাজার ৭৫৬ কোটি টাকা। যা সেই সময়ের মোট লক্ষ্যমাত্রার ৮৩ দশমিক ৬৮ শতাংশ।

নিয়ম অনুযায়ী বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোর বিতরণ করা মোট ঋণের ২ শতাংশ কৃষিঋণ হিসেবে বিতরণ করে। এর বাইরে বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক ও রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংক বিতরণ করা ঋণের পুরোটাই কৃষিঋণ হিসেবে। এর বাইরে ক্ষুদ্রঋণ বিতরণী সংস্থার (এনজিও) নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ (এমআরএ) নিবন্ধিত এনজিও কৃষিঋণের বড় একটি অংশ বিতরণ করে। যেসব বাণিজ্যিক ব্যাংকের পল্লী অঞ্চলে ঋণ বিতরণে যথেষ্ট অবকঠামো নেই, সেসব ব্যাংক এনজিওর মাধ্যমে বিতরণ করে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্য অনুযায়ী, চলতি অর্থবছরের আলোচ্য দশ মাসে আট রাষ্ট্রায়ত্ত বাণিজ্যিক ব্যাংক বিতরণ করেছে ১০ হাজার ৯৩৪ কোটি ৪৪ লাখ টাকা, যা লক্ষ্যমাত্রার ৯৩ দশমিক ৭৯ শতাংশ। দেশি-বিদেশি বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলো বিতরণ করেছে ১৫ হাজার ৯৯৫ কোটি ১৫ লাখ টাকা, যা মোট লক্ষ্যমাত্রার ৮৩ দশমিক ৫১ শতাংশ।

কৃষি বাংলাদেশের অর্থনীতির অন্যতম চালিকাশক্তি। করোনা মহামারি ও বর্তমান যুদ্ধ পরিস্থিতিতে কৃষির গুরুত্ব ব্যাপকহারে পরিলক্ষিত হচ্ছে। তাই কৃষি খাতে প্রয়োজনীয় অর্থায়নের মাধ্যমে সহায়তা করতে বাংলাদেশ ব্যাংক সচেষ্ট রয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে ব্যাংকগুলো যদি এই খাতের প্রতি গুরুত্ব দেয় তবে খাদ্য ও অর্থনৈতিক সংকট মোকাবিলা সহজ হবে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

বাংলাদেশ ব্যাংক বলছে, গত ২০২১-২২ অর্থবছরে ঋণ বিতরণের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছিলো ২৮ হাজার ৩৯১ কোটি টাকা। তখন ব্যাংকগুলো লক্ষ্যমাত্রার চেয়েও বেশি বিতরণ করেছিলো। যা লক্ষ্যমাত্রার প্রায় ১০২ শতাংশ। ২০২২-২৩ অর্থবছরে কৃষি ঋণের লক্ষ্যমাত্রা ৩০ হাজার ৯১১ কোটি টাকা ধরা হয়েছে। যার মধ্যে অর্থবছরের প্রথম দশ মাসেই লক্ষ্যমাত্রার ৮৭ দশমিক ৪০ শতাংশ ঋণ বিতরণ করেছে ব্যাংকগুলো।

কৃষিঋণ বিতরণের লক্ষ্যমাত্রার মধ্যে রাষ্ট্রায়ত্ত আট ব্যাংকের কৃষিঋণ বিতরণের লক্ষ্যমাত্রা রয়েছে ১১ হাজার ৭৫৮ কোটি টাকা। বেসরকারি বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোর লক্ষ্যমাত্রা ১৮ হাজার ৩৮২ কোটি টাকা। এছাড়া আট বিদেশি বাণিজ্যিক ব্যাংকের কৃষিঋণ বিতরণে লক্ষ্যমাত্রা রয়েছে ৭৭১ কোটি টাকা।

শেয়ার দিয়ে সবাইকে দেখার সুযোগ করে দিন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *