এপ্রিল ২২, ২০২৪

কর সংস্কৃতি বিকাশ, কর করদাতাদের আস্থা ও বিশ্বাস অর্জন করার লক্ষ্যে এনবিআরের আয়কর বিভাগ ২০২০ সালে প্রথমবারের মতো নভেম্বর মাসকে ‘আয়করা তথ্য-সেবা মাস’ ঘোষণা করে। সেই সঙ্গে নভেম্বর মাস আয়কর রিটার্ন দাখিলের শেষ মাস, সে কারণে করদাতাদের নিরবচ্ছিন্নভাবে বিশেষ সেবা দিতে করসেবা মাস ঘোষণা করা হয়েছে। মঙ্গলবার (১ নভেম্বর) সকালে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) সম্মেলন কক্ষে করসেবা মাস উদ্বোধনকালে প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান আবু হেনা মো. রহমাতুল মুনিম এ কথা বলেন।

এনবিআর চেয়ারম্যান বলেন, চিরায়ত সামাজিক জীবনের সঙ্গে যদি আয়কর আহরণের মতো জটিল বিষয়কে যুক্ত করে দেওয়া যায় তাহলে করদাতারা উৎসবের আমেজে আয়কর দেওয়ার সুযোগ পাবেন এবং এর মাধ্যমে কর সচেতনতাসহ রাজস্ব আহরণ উল্লেখযোগ্য পরিমাণে বৃদ্ধি পাবে। যে কারণে আয়কর তথ্য-সেবা মাসে প্রতিটি কর অঞ্চলে মেলার আদলে করসেবা দেওয়ার ব্যবস্থা রাখা হয়েছে।

উদ্বোধন অনুষ্ঠান সূত্রে জানা যায়, বৈশ্বিক মহামারি করোনা পরিস্থিতিতে আয়কর মেলা আয়োজনের পরিবর্তে সব কর অঞ্চলে বিগত বছরের মতো মেলার পরিবেশে নভেম্বর মাসের ১ তারিখ থেকে ৩০ তারিখ পর্যন্ত আয়কর রিটার্ন গ্রহণের জন্য সেবা দেওয়া হবে। নভেম্বরের পুরো মাসজুড়ে ঢাকা ও চট্টগ্রামসহ দেশের ৩১টি কর অঞ্চলের ৬৪৯টি সার্কেলে ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত অফিস চলাকালে নিরবচ্ছিন্নভাবে পাওয়া যাবে করসেবা।

করসেবা মাসে করদাতাকে প্রতিটি কর অঞ্চলে যেসব সুবিধা দেওয়া হবে— করদাতারা নির্ধারিত কর অঞ্চলে তাদের ২০২২-২০২৩ করবর্ষের স্ব স্ব আয়কর রিটার্ন জমা দিতে পারবেন। প্রতিটি কর অঞ্চলের ওয়েবসাইটে আয়কর সংক্রান্ত বিভিন্ন ফরম, পরিপত্র, রিটার্ন পূরণের নির্দেশিকা, ভিডিও টিউটোরিয়ালসহ অন্যান্য প্রয়োজনীয় তথ্য সন্নিবেশিত থাকবে। দেশব্যাপী ৩১টি কর অঞ্চলের ৬৪৯টি সার্কেলে ৩০ নভেম্বর ২০২২ পর্যন্ত অফিস চলাকালে নিরবচ্ছিন্নভাবে আয়কর রিটার্ন গ্রহণ করা হবে।

এছাড়া কর অঞ্চল-৪, ঢাকার ব্যবস্থাপনায় ১-১৪ নভেম্বর বাংলাদেশ সচিবালয় ও অফিসার্স ক্লাব ঢাকায় রিটার্ন গ্রহণ বুথ ও হেল্প ডেস্ক স্থাপনের মাধ্যমে নভেম্বর মাসের প্রথম দুই সপ্তাহ এবং পরিকল্পনা কমিশনে নভেম্বর মাসের ২০-২৪ নভেম্বর পাঁচ দিন কর তথ্য-সেবা দেওয়া হবে। সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যদের জন্য ঢাকা সেনানিবাসের সেনা মালঞ্চে আগামী ৯ ও ১০ নভেম্বর দুই দিন করদাতাদের রিটার্ন গ্রহণ ও কর-তথ্য সেবা দেওয়া হবে। অনলাইনে আয়কর রিটার্ন দাখিল সিস্টেমটি চালু রয়েছে। ইতোমধ্যে করদাতারা ওই সিস্টেমে রেজিস্ট্রেশন করাসহ রিটার্ন তৈরি এবং রিটার্ন দাখিল করতে পারছেন। হটলাইন নম্বর ০৯৬১২৭১৭১৭১ এর মাধ্যমে ই-রিটার্ন সম্পর্কে পরামর্শ গ্রহণ করে অনলাইনে রিটার্ন দাখিল করতে পারবেন।

অপরদিকে রেজিস্ট্রেশন বুথে প্রয়োজনীয় তথ্য প্রদান সাপেক্ষে নতুন করদাতারা রেজিস্ট্রেশন ও বর্তমান করদাতারা রি-রেজিস্ট্রেশন করতে পারবেন। ই-টিডিএস সিস্টেমের মাধ্যমে সব কর অঞ্চলের অধিক্ষেত্রাধীন উৎসে কর কর্তনকারী কর্তৃপক্ষে বাস্তবায়ন কার্যক্রম চলমান রয়েছে। করদাতাদের আয়কর রিটার্ন, টিআইএন আবেদন এবং চালান ফরম দেওয়া হবে। ই-পেমেন্টের মাধ্যমে করদাতারা অনলাইনে আয়কর পরিশোধ করতে পারবেন।

২০১০ সাল থেকে প্রতি বছর কর মেলা আয়োজন করে আসছে এনবিআর। এরই মধ্যে কর মেলা সাধারণ করদাতাদের কাছে বেশ জনপ্রিয় হয়েছে। তবে গত বছর করোনা মহামারির কারণে মেলা অনুষ্ঠিত হয়নি। চলতি বছরও একই কারণ দেখিয়ে মেলার আয়োজন থেকে বিরত থেকেছে এনবিআর।

শেয়ার দিয়ে সবাইকে দেখার সুযোগ করে দিন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *