ফেব্রুয়ারি ২৭, ২০২৪

২০২২ সালের নভেম্বরে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে খেলতে অস্ট্রেলিয়ায় গিয়েছিলেন লঙ্কান ক্রিকেটার দানুশকা গুনাথিলাকা। যদিও ইনজুরির কারণে টুর্নামেন্টের শুরুর দিকেই মাঠের বাইরে চলে যেতে হয়েছিল তাকে। চোট গুরুতর না হওয়ায় তাকে দলের সঙ্গেই রেখে দেয়া হয়েছিল।

এরপর গত ৫ নভেম্বর ধর্ষণের অভিযোগে সিডনিতে গুনাথিলাকাকে গ্রেফতার করা হয়। পরে অবশ্য শর্তসাপেক্ষে ছেড়ে দেয়া হয় তাকে। তার কাছ থেকে দেড় লাখ অস্ট্রেলিয়ান ডলার জরিমানাও নেয়া হয়। কিছু শর্ত জুড়ে দেওয়া হয়েছিল। এর মধ্যে ছিল, নির্দিষ্ট ঠিকানায় থেকে প্রতিদিন পুলিশকে রিপোর্ট করা। এ ছাড়া টিন্ডার ও অন্যান্য সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম চালনা থেকেও বিরত থাকার শর্ত দেয়া হয়েছিল তাকে। অস্ট্রেলিয়ায় থাকা অবস্থায় রাতে বাইরেও বের হতে পারতেন না তিনি।

গত ১৬ নভেম্বর জামিন পাওয়ার পর থেকেই সিডনীতে বসবাস শুরু করেন গুনাথিলাকা। এরপর গত ২৩ ফেব্রুয়ারি গুনাথিলাকার জামিনের শর্ত শিথিল করা হয়। এবার জানা গেল, অস্ট্রেলিয়ায় তার বিরুদ্ধে আনিত যৌন নিপীড়নের চারটি অভিযোগের মধ্যে তিনটিই খারিজ করে দিয়েছেন সেই দেশের পাবলিক প্রসিকিউটর।

এর আগে এর আগেও বিভিন্ন নেতিবাচক কারণে সংবাদের শিরোনাম হয়েছিলেন গুনাথিলাকা। অন্তত তিনবার গুনাথিলাকাকে বিভিন্ন শৃঙ্খলা ভঙ্গের কারণে নিষিদ্ধ করেছিল লঙ্কান ক্রিকেট বোর্ড। এর মধ্যে কমপক্ষে দুইবার তার শাস্তি কমিয়ে দ্রুত মাঠে ফেরার সুযোগ করে দিয়েছিল শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট বোর্ড। ২০১৫ সালে শ্রীলঙ্কার হয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক হয় গুনাথিলাকার। দেশটির হয়ে ৮ টেস্ট, ৪৭ ওয়ানডে ও ৪৬টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছেন এই টপ অর্ডার ব্যাটার।

শেয়ার দিয়ে সবাইকে দেখার সুযোগ করে দিন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *